ইউপি সদস্য মিঠুকে অস্ত্র ও মাদক দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা, থানায় অভিযোগ



দৌলতপুর প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের পিয়ারপুর ইউনিয়নের সদস্য মাফিউল ইসলাম মিঠু জোয়াদ্দার ওরফে মিঠু মেম্বরকে ষড়যন্ত্র করে অস্ত্র ও মাদক দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হয়েছে। এ ঘটনায় দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তবে পুলিশ কোন পদক্ষেপ নেয়নি বলে জানাগেছে। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, গত বুধবার রাত ৯টার দিকে মাফিউল ইসলাম মিঠু মেম্বর ভেড়ামারা থেকে নিজ বাড়ি কামালপুর ফেরার পথে আশরাফুলের দোকানের সামনে সিআইডি পুলিশ পরিচয়ে তার মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। এসময় অস্ত্র ও মাদক থাকতে পারে এমন সন্দেহে মিঠু মেম্বরের দেহ তল্লাশী করে সিআইডি পুলিশ পরিচয়ধারীরা। মিঠু মেম্বরের দেহ তল্লাশী করে কিছু না পাইলে পূর্ব বিরোধের সূত্র ধরে একই এলাকার কথিত ইনফর্মার মাদক ও অস্ত্র মামলার আসামী বুলবুল (৪০), সাদ্দাম হোসেন (২৮), জয় (২২) ও জামিরুল ইসলাম (৪০) যোগসাজস করে মিঠু মেম্বরকে ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে পরিকিল্পিতভাবে ডিপটিউবয়েলের (অগভীর নলকুপ) কাছ থেকে একটি ব্যাগ উদ্ধার দেখিয়ে সিআইডি পুলিশের হাতে ধরিয়ে দেয়। ঘটনাটি সজানো ঘটনা বুঝতে পেরে সিআইডি পুলিশ পরিত্যক্ত অবস্থায় তা উদ্ধার দেখায়। মিঠু মেম্বরকে ফাঁসানোর জন্য মাদক ও অস্ত্র মামলার আসামী বুলবুল, সাদ্দাম হোসেন, জয় ও জামিরুল ইসলাম পরিকল্পিতভাবে এমন নাটক সাজিয়েছিল বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। মিঠু মেম্বরকে অস্ত্র ও মাদক মামলায় ফাঁসাতে না পেরে মাদক ও অস্ত্র মামলার আসামীরা ওই রাতে মিঠু মেম্বরকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় বাড়ির লোকজন চিৎকার ও হৈচৈ বাঁধালে হামলাকারীরা দু’টি মোটরসাইকেল ফেলে পালিয়ে গেলে পুলিশ তা উদ্ধার করে বলে অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে। এ ঘটনার বিষয়ে মিঠু মেম্বর গতকাল শুক্রবার অভিযোগ করে বলেন, মাদক ও অস্ত্র মামলার আসামী কামালপুর গ্রামের আলি আক্তারের ছেলে সোহেল রানা বুলবুল ও তার সহযোগি সাদ্দাম হোসেন, জয়, শহিদুল ও জামিরুল ইসলাম এলাকার রাজনৈতিক বিরোধের সূত্র ধরে পরিকল্পিতভাবে তাকে অস্ত্র ও মাদক দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। এখনও তারা ষড়যন্ত্র ও পরিকল্পনা অব্যাহত রেখেছে। একজন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি হিসেবে বিষয়টি দৌলতপুর থানা পুলিশকে অবগত করলেও ওইসকল চিহ্নিত মাদক ও অস্ত্র মামলার আসামীদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন না পুলিশ। হীন ষড়যন্ত্র থেকে বাঁচতে তিনি সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের দৃষ্টি কামানা করেছেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *