এএসপি হলেন কুষ্টিয়ায় কর্মরত সাবেক ওসি আব্দুল খালেক



নিজস্ব প্রতিনিধি

মোঃ আব্দুল খালেক ভোলা জেলার চরফ্যাশন থানার পূর্ব চর মাদ্রাজ গ্রামের নন্দিত স্কুলশিক্ষক মরহুম ইসমাইল খান এর ঘরে জন্ম গ্রহণ করেন৷ বাবা-মায়ের পাঁচ ভাই এক বোনের মধ্যে মোঃ আব্দুল খালেক জ্যেষ্ঠ৷ তিনি চরফ্যাশন কেরামতগঞ্জ হাই স্কুল থেকে ১৯৮১ সালে মাধ্যমিক, চরফ্যাশন সরকারি কলেজ থেকে ১৯৮৩ সালে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করে পাস করেন। বরিশাল ব্রজমোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে হিসাববিজ্ঞানে বিষয়ে তিনি ১৯৮৭ সালে স্নাতক সম্মান ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি ১৯৯০ সালের আগস্ট মাসে আউটসাইড সাব-ইন্সপেক্টর ক্যাডেট হিসেবে পুলিশ একাডেমী সারদায় এক বছর মেয়াদি বেসিক ট্রেনিং গ্রহণ করেন৷ ট্রেনিং শেষ করে তিনি শিক্ষানবিশ সাব-ইন্সপেক্টর হিসেবে ঝিনাইদহ জেলায় তার শিক্ষানবিশ সময় অতিবাহিত করেন। ২০০৫ সালে তিনি পুলিশ পরিদর্শক পদে পদোন্নতি লাভ করে এসবি ঢাকায় পদায়ন হন৷ এরপর তিনি অফিসার ইনচার্জ হিসেবে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ থানা, যশোরের চৌগাছা থানা, গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি থানা এবং কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর,সদর ও কুমারখালী থানায় দায়িত্ব পালন করেন। মোড়েলগঞ্জ থানায় দেশীয় অস্ত্র, বন্দুক, পিস্তল, শটগান উল্লেখযোগ্য পরিমাণ গুলি উদ্ধার করা-সহ আসামি গ্রেপ্তার করে ব্যাপক প্রশংসিত হন৷ কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী থানায় একটি হত্যা মামলা ভিকটিমের মাথা উদ্ধার করাসহ দুটি চাঞ্চল্যকর খুন হামলার রহস্য উদঘাটন করে তার পুলিশী কার্যক্রমের দক্ষতার বিষয়ে সবার কাছে নন্দিত হন। তিনি এখন পদন্নোতি পেয়ে এএসপি হওয়ায় সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *