কুষ্টিয়ায় ২৪ ঘন্টায় ৫ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১৯৫



চলমান লকডাউনের আজ ৭ম দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক

কুষ্টিয়ায় উদ্বেগজনক হারে বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ। বিশেষ করে ঈদের পর থেকে এই সংক্রমণের হার বাড়তে শুরু করেছে। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে গত ২৪ ঘন্টায় শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে গতকাল শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় জেলায় আরো ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা সংক্রমিত হয়ে মারা গেছেন ২০৫ জন। কুষ্টিয়ায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১৯৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে কুষ্টিয়ায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭ হাজার ০৮৫ জনের। আক্রান্তের ক্ষেত্রেও অধিকাংশ রোগী কুষ্টিয়া শহরকেন্দ্রিক। বিশেষ করে ঈদের পর থেকে এই সংক্রমণের হার উদ্বেগজনকভাবে বাড়তে শুরু করেছে। মৃত্যু ও সংক্রমণের হার আবারো বাড়তে শুরু করেছে। এদিকে গত রবিবার (২০ জুন) রাত সাড়ে ৮ টায় কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে কুষ্টিয়া জেলায় ৭ দিনের লকাডাউন আরোপ করে এ সংক্রান্ত গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন। আজ রবিবার লকডাউনের ৭ম দিন। মানুষকে ঘরে রাখতে সোমবার ভোর থেকেই মাঠে তৎপর রয়েছেন জেলা প্রশাসন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। গতকাল শনিবার লকডাউনের ৬ষ্ঠ দিনেও জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন প্রবেশমুখে পুলিশ সদস্যদের কড়া পাহারা দিতে দেখা যায়। কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের নিয়মিত করোনা আপডেট তথ্যনুযায়ী, শনিবার কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব ও এন্টিজেন টেস্ট মোট ৫৭৭ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে ১৯৫ টি নমুনা পজিটিভ হয়। নতুন শনাক্ত হওয়ার রোগীর মধ্যে সদর উপজেলায় ৬৩ জন, কুমারখালী উপজেলায় ৩৬ জন, মিরপুর উপজেলায় ২২ জন, দৌলতপুরে ২৪ জন, খোকসা উপজেলায় ২১ জন ও ভেড়ামারা উপজেলায় ২৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, করোনা ওয়ার্ডগুলোতে রোগীতে টইটম্বুর। হাসপাতালের তথ্য বলছে, গতকাল শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত হাসপাতালে ১৮৮ জন করোনা রোগীকে চিকিৎসা নিতে দেখা গেছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট দেয়ার আশঙ্কা রয়েছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *