টেলিভিশন লাইসেন্স: ৩৩৩ কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার



আলো ডেক্স

টেলিভিশন ব্যবহারেও যে লাইসেন্স নিতে হয় এবং বছর বছর তার ফি দিতে হয় সেটিই যেন এখন ভুলতে বসেছে সবাই। লাইসেন্স ফি আদায়ে প্রশাসনিক জটিলতার কারণে সরকার প্রতি বছর অন্তত ৩৩৩ কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে। বাস্তবতা যাই হোক, নিয়মের খাতায় এখনো টেলিভিশন ব্যবহারে লাইসেন্স নেওয়া ও বছর বছর ফি দেওয়ার বিধান রয়েছে। বছরে অন্তত ৩৩৩ কোটি টাকা রাজস্ব আয়ের সুযোগ থাকা এই খাতে এখন আয় বছরে মাত্র ১৫ হাজার টাকা। কোনো কোনো বছর কোনো রাজস্বই আদায় করা হয় না। রাজধানীর মিরপুরের বাসিন্দা গৃহিণী কামরুন্নাহার লাকি বলেন, যখন ছোট ছিলাম তখন শুনতাম যে, লাইসেন্স লাগে। বড? হওয়ার পর বিশেষ করে ঢাকায় আসার পর কখনো সেই লাইসেন্স আর নিতে হয়নি। আগে লাইসেন্সের জন্য বাসায় বাসায় অভিযানও হতো। এখন তো তেমন কিছু হয় না। এখনকার তরুণরা এই লাইসেন্সের কথা জানে কিনা সেটাই সন্দেহ। আমরা তো তাও শুনেছি। জানা যায়, আবাসিক এবং বাণিজ্যিক হিসেবে টেলিভিশন ভেদে একটি টেলিভিশনের জন্য প্রতি বছর ৬০০ টাকা থেকে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত লাইসেন্স ফি দিতে হয়। প্রতি বছর দেশে গ্রাহক পর্যায়ে প্রায় ১৮ লাখ টিভি বিক্রি হয়। সেই হিসেবে শুধু আবাসিক খাত থেকেই বছরে ৩৩৩ কোটি টাকা রাজস্ব আয়ের সুযোগ রয়েছে। পাঁচ বছরে সেটি প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা। তবে সম্ভাবনার বিপরীতে কথা বলছে পরিসংখ্যান। সবশেষ দুই অর্থবছরে এই লাইসেন্স বাবদ কোনো রাজস্ব আদায় করা হয়নি। এর আগে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে লাইসেন্স ফি বাবদ আট হাজার ৮৯৯ টাকা, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে দুই হাজার ৯৪০ টাকা এবং ২০১৮-১৯ অর্থবছরে তিন হাজার টাকা রাজস্ব আদায় করা হয়। টেলিভিশনের এই লাইসেন্স দেওয়া ও ফি নেওয়ার কর্তৃত্ব বাংলাদেশ টেলিভিশন। তবে সেই ফি আদায়ে খুব একটা সক্রিয় কার্যক্রম দেখা যায় না সংস্থাটির। অন্যদিকে আইনি অধিকার না থাকায় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় এই ফি আদায় করতে পারছে না। প্রশাসনিক ভুলে এমনটা হচ্ছে বলে মনে করেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী এবং বর্তমান সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, এখানে একটা প্রশাসনিক ভুল আছে। বাংলাদেশ টেলিভিশন একটা টিভি চ্যানেল। তাদের এই দায়িত্ব দেওয়া যায় না। এর জন্য আলাদা কর্তৃপক্ষ থাকা উচিত, যেটা তথ্য মন্ত্রণালয়ের নেই। ফলে এই খাত থেকে ফি আদায় অনাদায় থেকে গিয়েছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *