পাংশায় হতো দরিদ্রদের মধ্যে চলছে ১০ টাকার চাউল বিক্রি


পাংশা প্রতিনিধি

খাদ্য বান্ধব কর্মসুচির আওতায় রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার ডিলারদের মাধ্যমে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের হতো দরিদ্র পরিবারের মধ্যে চলছে ১০ টাকা চাউল বিক্রি। জানা যায় প্রকৃত কার্ড হোল্ডার প্রতি কেজী ১০ টাকা হিসাবে ৩০ কেজী করে চাউল ক্রয় করতে পারবে। আমাদের প্রতিনিধি মোঃ আব্দুর রশিদ পাংশা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের বিভিন্ন ডিলারের বিক্রয় কেন্দ্র ঘুড়ে এসে জানান বাহাদারপুর ইউনিয়নের সেনগ্রাম কালীতোলা বাজারে ডিলার আবুল কাশেম, বাহাদুরপুর বাজারে ডিলার ইউনুছ আলী মল্লিক, হাবাসপুর ইউনিয়নের হাবাসপুর বোর্ড অফিস প্রাঙ্গনে ডিলার আব্দুস ছালাম সরদার, হাবাসপুর সমবায় বাজারে ডিলার আব্দুল আলীম মৃদুল খান, চর ঝিকড়ী বাজারে ডিলার সোহরাফ মন্ডল, হাবাসপুর কায়ুম ডাক্তারে মোড়ে ডিলার চায়না রানী বিশ্বাস, চর আফড়া গ্রামে ডিলার ফজলুর রহমান বিশ্বাস, যশাই ইউনিয়নের কাদী পাড়া মোড়ে বীর মুক্তিযোদ্বা গোলাম মোস্তাফা আনোয়ার হোসেন, বাবুপাড়া ইউনিয়নের হাজরা পাড়া গ্রামে ডিলার মুনসুর সরদার, মাছপাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম বাজারে ডিলার আবুল কাশেম, মধ্য বাজারে ডিলার তপন, পূর্ব বাজারে ডিলার লিটন, কলিমর ইউনিয়নের বোর্ড অফিস বাজারে ডিলার মতিয়ার রহমান বিশ্বাস, গোপালপুর বাজারের ডিলার সিদ্দিক আলী মন্ডল, বনক গ্রামে বাজারে ডিলার সিরাজুল ইসলাম, কশবামাজাইল ইউনিয়নের শিকদার পাড়া মোড়ে ডিলার মুরাদ শিকদার, বাংলাট মোড়ে ডিলার ছানা উদ্দিন, নাদুরিয়া ঘাট বাজারে ডিলার আবু দাউদ শেখ, ভাতশালা বাজারে ডিলার আফছার হোসেন, পাট্টা ইউনিয়নের জোনা পাট্টা বাজারে ডিলার অসিত পালিত মাদু, মৌরাট ইউনিয়নের চর হরিনা ডাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে ( আনন্দ বাজারে) ডিলার মজিবর রহমান মাস্টার, বাগদুলি বাজারে ডিলার কেসমত আলী শেখ, শরিষা ইউনিয়নের বহলাডাঙ্গা বাজারে ডিলার রফিকুল ইসলাম, বাগলী বাজারে ডিলার ফরিদ হোসেন ও প্রেমটিয়া বাজারে ডিলার জামাল হোসেন স্ব-স্ব ইউনিয়নের তদারকি কর্মকর্তা বা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে প্রকৃত কার্ড হোল্ডাদের মধ্যে প্রতি কেজী ১০ টাকা দরে ৩০ কেজী করে চাউল বিক্রি করছেন। এই মহামারী করোনা কালীন সময় এবং চাউলের বাজার উদ্বো মূখির সময় হতো দরিদ্র পরিবার গুলি ১০ টাকা দরে ৩০ কেজী করে চাউল ক্রয় করতে পেরে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসীনা এবং রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্বা জিল্লুল হাকিমকে ধন্যবাদ জানান।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *