প্রখররোদে শেষ হল বৃষ্টির জন্য ‘ইসতিসকা’ নামাজ



কুমারখালী প্রতিনিধি

অনাবৃষ্টি ও অতি খরায় অতিষ্ঠ জনজীবন, জীব – জন্তু, পশুপাখি ও কৃষি ফসল। এ থেকে বাঁচতে এক ফোঁটা বৃষ্টির আশায় প্রখররোদে তৃতীয় ও শেষ দিনের মত নামাজ আদায় করেছে গ্রামবাসী।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ৩টায় কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার যদুবয়রা ইউনিয়নের দক্ষিণ ভবানীপুর গ্রামের খরেলার বিলে এ নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে কয়েকটি গ্রামের শত তিন মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, সমাজ ও মানুষের মাঝে ঘুষ, সুদ,অন্যায়,অবিচার, বেবিচার বেড়ে গেছে। মানুষ তার পাপের সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌছে গেছে। এতে আল্লাহ মানুষের উপর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। সেজন্য দীর্ঘদিন বৃষ্টি দেননা আল্লাহ। ফলে মাঠ ফেটে চৌচির, পুড়ে যাচ্ছে মাঠের ফসল। জনজীবন অতিষ্ট দুর্বিষহ গরমে। তাই প্রখররোদে গ্রামবাসী তিনদিন ধরে ইসতিসকা নামাজ আদায় করেছে। এই বৃষ্টির জন্য ‘ইসতিসকা’ নামাজ পরিচালনা করেন চৌরঙ্গী বাজার জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা মোঃ জুবায়ের। নামাজের পর খুৎবা পাঠ শেষে দোয়া পরিচালনা করেন তিনি। পরে বল্লভপুর জিকে জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা রবিউল ইসলাম বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন।

নামাজ শেষে ইমাম জুবায়ের ও রবিউল ইসলাম বলেন, মানুষ তার পাপের সর্বোচ্চ পর্যায়ে গেছে। এতে আল্লাহ মানুষের উপর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। ফলে মানুষ, জীব জন্তু ও প্রাণী পশুপাখি অনাবৃষ্টি ও অতি খরায় পড়েছে। তিনি আরো বলেন, আল্লাহ’র কাছে মাপ চেয়ে আমরা ইসতিসকা নামাজ আদায় করে কান্নাকাটি করেছি। যদুবয়রা ইউনিয়ন পরিষদের ১ নং ওয়ার্ড সদস্য সাইদুল ইসলাম, ৭ মাস বৃষ্টি বাদল নেই। পানির লিয়ার নিচে নেমে গেছে। মাঠের ফসল বিনষ্ট হচ্ছে। তাই আশেপাশের ৭ গ্রামের মানুষ আল্লাহ’র কাছে বৃষ্টি চেয়ে তিনদিন ধরে নামাজ ও দোয়া করেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *