ভারতে শনাক্ত ৩ লাখ ২০ হাজার , মৃত্যু ২৭৬৪



আলো ডেস্ক

করোনা মহামারীতে বিধ্বস্ত গোটা ভারত। রোগীর চাপে ভেঙে পরেছে পুরো চিকিৎসাসেবা। তবে আশার কথা করোনাভাইরাসে বিধ্বস্ত ভারতের মৃত্যু সংখ্যা কিছুটা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ২ হাজার ৭৬৪ জন। একইসঙ্গে কমেছে আক্রান্তের গ্রাফ। ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৩ লাখ ১৯ হাজার ৪৩৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। মঙ্গলবার এ তথ্য জানা গেছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু নিয়ে জরিপ করা অনলাইন মাধ্যম ওয়ার্ল্ডো মিটার থেকে।
সোমবার ভারতে দুই হাজার ৮১২ জন করোনায় মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছিলেন তিন লাখ ৫২ হাজার ৯৯১ জন। দেশটিতে করোনার মোট সংক্রমণ দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৭৬ লাখ ২৫ হাজার ৭৩৫ জনে। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৮০ জন। করোনার বৈশ্বিক সংক্রমণ তালিকায় ভারতের অবস্থান দ্বিতীয় আর মৃত্যুতে চতুর্থ।
ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবরে বলা হয়, ভারতে সবচেয়ে করোনা আক্রান্ত পাঁচটি রাজ্য হলো মহারাষ্ট্র, কেরল, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু ও অন্ধ্রপ্রদেশ।
পশ্চিমবঙ্গে করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে। পুরো দেশেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। এতে দেশটির বিভিন্ন স্থানের স্বাস্থ্যব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। অক্সিজেন, বেড ইত্যাদির সংকট দেখা দিয়েছে। মে মাসে সংক্রমণ পিক-এ পৌঁছবে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।
এদিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে লকডাউন এবং কন্টেনমেন্ট জোন ঘোষণায় রাজ্য সরকারগুলোর জন্য নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। গতকাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে রাজ্য প্রশাসনগুলোকে লিখিতভাবে নির্দেশনা দিয়েছে।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরামর্শ, যে সব এলাকায় সংক্রমণের হার সপ্তাহখানেক ধরে ১০ শতাংশ বা তার বেশি অথবা করোনা হাসপাতালে ৬০ শতাংশ বেড ভর্তি হয়ে গেছে, সেখানে ওই নির্দেশিকা মেনে লকডাউন চালু করা বা কন্টেনমেন্ট জোন তৈরি করতে পারে রাজ্য প্রশাসন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *