মোংলায় প্রবাহমান খাল দখল করে দোকান নির্মাণের অভিযো



মোংলা প্রতিনিধি

মোংলায় একটি দৃশ্যমান ও প্রবাহমান খাল দখল করে দোকান নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পেছনে ঠাকুরানী খালের শেষ প্রান্ত দখল করে রাতারাতি বেশ কয়েকটি দোকান তৈরীর করছেন মোশারফ হোসেন খাঁন নামে প্রভাবশালী এক ব্যক্তি। তবে খাল দখলের বিষয়ে স্থানীয়দের মৌখিক অভিযোগে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দোকানের নির্মান কাজ বন্ধ রেখে মালিকানা কাগজপত্র নিয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার( ভুমি) এর দপ্তরে হাজির হতে বলা হয়েছে।

শনিবার সরেজমিনে ৭ নং কলেজ রোডস্থ মোংলা-মোড়েলগঞ্জ সড়কের পাশে ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সয়ের পিছনে গিয়ে দেখা যায় ঠাকুরানী নামক প্রবাহমান খালের ওপর বেশ কয়েকটি দোকান নির্মাণের কাজ চলছে। স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ নাসির, আলতাব, এমাদুল, মিলন ও ফিরোজ সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, যে খালের ওপর দোকান নির্মাণ করা হচ্ছে এটি একটি প্রবাহমান খাল। ছোট বেলায় ওই খালে তারা অনেক মাছ ধরেছেন গোসলও করেছেন। কিন্তু গত দুই বছর ধরে দেখছি খালটির মালিক এখন মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের ট্রাফিক বিভাগের অবসারপ্রাপ্ত কর্মচারী মোশারফ হোসেন খাঁন। রাতারাতি দোকানপাট নির্মাণ করে ভাড়াও তুলছেন তিনি। এ কাজে তাকে কেউ বাধা না দেওয়ায় তিনি নতুন করে আরও বেশ কয়েকটি দোকানপাট নির্মাণ করছেন।

মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ জীবিতোষ বিশ্বাস অভিযোগ করে বলেন, সরকারী ওই খালটি দখল করে রাখায় আমাদের হাসপাতালের পয়ঃনিস্কাশনে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। ড্রেন দিয়ে হাসপাতালের বর্জ না নামায় মারাতœক ক্ষতিও হচ্ছে বলেও জানান তিনি। খাল দখলকারী মোশারেফ খাঁনকে ডেকে এ কাজ বন্ধ করাসহ তার বিরুদ্ধে এসিল্যান্ডের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন ডাঃ জীবিতোষ। এসিল্যান্ড এ ব্যাপরে ব্যবস্থার নেওয়ার কথা বলেছেন বলেও জানান তিনি।

মোংলা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নয়ন কুমার রাজবংশী বলেন, সরকারী খাল দখল করে স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ পেয়েছেন। এর পর সঙ্গে সঙ্গে ওই কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং একই সাথে কি বুনিয়াদে এই স্থাপনা করা হচ্ছে, সেজন্য দোকান নির্মাণকারী মোশারফকেও তলব করা হয়েছে। জানতে চাইলে মোশারফ হোসেন খাঁন বলেন, যে খালটির ওপরে দোকান নির্মাণ করছি সেটি তার মালিকানার শেহালাবুনিয়া মৌজার জমি। এ ব্যাপারে স্যারের (এসিল্যান্ড) কাছে যাচ্ছি কোন সমস্যা নাই।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *