যে কোনও একটি ফরম্যাটকে বিদায় বলতে হবে -মাহমুদউল্লাহর


আজকের আলো ডেক্স

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কায় পৌঁছেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আগে থেকেই জানা গিয়েছিল ইঞ্জুরির কারণে শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে পাওয়া যাবেনা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শততম টেস্ট ম্যাচেও ছিলেন না রিয়াদ।

প্রায় দুই বছর যাবত টেস্ট দলে যাওয়া আসার মধ্য দিয়ে আছেন এই অলরাউন্ডার। আছে চোট সমস্যা। বয়স পঁয়ত্রিশ পেরিয়ে গেছে। শরীরটাও আর এত বেশি সাড়া দিতে চায় না। কথা উঠেছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের নিজের সর্বোচ্চটা নিংড়ে নেওয়ার জন্য যেকোনো একটি ফরমেট কে বিদায় বলতে হতে পারে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের।
পিঠের চোট দীর্ঘদিন ধরেই ভোগাচ্ছে রিয়াদকে। বিশেষজ্ঞ দলের মতামত ফিট থাকতে হলে টেস্ট ক্রিকেটের মত লংগার ভার্সনকে বিদায় বলতে হবে রিয়াদের। তবে বিসিবি চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী মনে করেন মাহমুদউল্লাহ কি করবেন তা তার একান্তই নিজের ব্যাপার। তবে নিজের শরীর দেখেশুনে সিদ্ধান্তটা রিয়াদকেই নিতে হবে।

গণমাধ্যমে এই চিকিৎসক বলেন, “মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের যে ইনজুরিটা আছে পিছনের (পিঠে), সেটি প্রকট আকার ধারণ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের সময়। এরপর থেকেই ব্যথাটা তাকে মাঠে বা মাঠের বাইরে তাকে ভোগাচ্ছে। দীর্ঘমেয়াদী একটা পরিকল্পনা অবশ্যই দরকার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের জন্য।

যেহেতু অনেকদিন ধরে খেলছে, সে নিজেই বোঝে তার শরীর সম্পর্কে। কিছু কিছু সিদ্ধান্ত ওকেই নিতে হবে যে কতটুকু ইন্টেন্সিটিতে বল করলে কিংবা ফিল্ডিং করলে ও নিরাপদ থাকবে।”

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেললেও টি-টোয়েন্টি সিরিজ পুরোটা খেলা হয়নি রিয়াদের। দলের নেতৃত্ব উঠেছিল লিটন দাসের কাধে। দেবাশীষ মনে করেন রিয়াদের মত অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের দরকার আছে বাংলাদেশে।

কি কারণে তাকে এই সিরিজে রাখা হয়নি সেটি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে রিয়াদ বলেন, “আমাদের কাজ হচ্ছে ওকে যথাসাধ্য চোটমুক্ত রাখার চেষ্টা করা। সে কারণেই ফিজিওর সাথে আলাপ করে নির্বাচকরা তাকে এই সিরিজ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে, যেন রিকভারির পর্যাপ্ত সময় পায়।”


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *