লাহিনী পাগলপাড়ার আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ



আলো ডেস্ক

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার লাহিনী পাগল পাড়া এলাকার মৃত কেরামত আলীর ছেলে সাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে কোর্টে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় উক্ত জায়গায় জোরপূর্বক ঘর নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে। জানা যায়,লাহিনী স্কুলপাড়া এলাকার মৃত আলিমুদ্দিনের ছেলে মোঃ আশারাফুল আলমের পৈত্রিক সম্পত্তির ৯১৮ দাগের,.৩৫০০ একরের মধ্যে .১৭৫০ একর জমি জোরপূর্বক ভাবে দখল করে আছে সাইদুল ইসলাম। জমি ফেরত পেতে আইনের আশ্রয় নেয় আশরাফুল আলম। তিনি কুষ্টিয়া মিস কেস নং -৬১/২০২১, স্মারক নং -২৫৮/২০২১ তারিখ ৯/২/২০২১, ইং খ্রিঃ কুষ্টিয়া কোর্টে একটি মামলা দায়ের করে । পরে ৩১/০৩/২০২১ তারিখ বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে উভয়পক্ষকে কোনরকম সমস্যা বা শান্তিভঙ্গ না করার নির্দেশ দেন। বর্তমানে কোর্টের নির্দেশনা অমান্য করে সাইদুল ইসলাম উক্ত জমিতে নতুন করে ঘর নির্মাণ করছে। কোর্টের নির্দেশনা অমান্য করার কারণে বর্তমানে উক্ত জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে আদালত। উল্লেখ্য, শহরতলীর রাহিনী মৌজার ৯১৮ দাগের ১৭.৫০ শতক সম্পত্তি আশরাফুল আলম রতন, তার মাতা আমিরন নেছা,দুই বোন শিরিন আক্তার ও আফরোজা আক্তারের নামে ২০১৩-২০১৪ সালে মিউটেশন হয়। যাহার কেস নং ৫৪৪/৯-১/২০১৩-২০১৪ ইং তারিখ। উক্ত দাগের সম্পত্তি মিউটেশন হবার পর জায়গার মালিক স্বত্তাধীকার সুত্রে আশরাফুল আলম তার মা আমিরন নেছা ও দুই বোন জমির মালিক হয়। জমির মালিক হবার সত্ত্বেও এখনো পর্যন্ত জমিতে বসবাস সহ নিজের দখলেই আনতে পারেনি জমির আসল মালিকরা। কারন আসরাফুল আলম রতনদের ৯১৮ দাগের ১৭.৫০ শতক জমি দখল করে বসবাস করছে পাগলপাড়ার সাইদুল। আর জমির মালিকরা যদি উক্ত জায়গায় দখল নিতে যায় তাহলে সাইদুল তার পেটুয়া বাহিনী দিয়ে তাদের উপর বিভিন্ন রকম হুমকি ধামকি প্রদান করে। সাইদুল যে জায়গা দখল করে রেখেছে তার কোন রকম কাগজপত্র সাইদুলের কাছে নেই কারন উক্ত জায়গা কখনোই সাইদুলের নাম সহ সাইদুলের বংশের কাউরেরো ছিলোনা। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী আশরাফুল আলম রতন বলেন, রাহিনী মৌজার ৯১৮ দাগের সাড়ে ১৭ শতক সম্পত্তি আমি আমার মা ও দুই বোনের নামে। সেখানে দীর্ঘদিন যাবত সাইদুল নামে এক ব্যাক্তি জোরপূর্বক দখল করে রেখেছে । আমি সহ আমার শরীকগন উক্ত জায়গার দখলে নিতে গেলে আমাদের উপর বিভিন্ন সময় হুমকি, হামলা সহ প্রান নাশের ভয় দেখায়। তাদের নিকট কোন কাগজপাতি কিছুই নেই তারপরেও জোরপুর্বক আমাদের জমি দখল করে রেখে দিয়েছে। শুধু তাই নয় উক্ত জায়গা সাইদুলের দখলে রাখার পেছনে এলাকার কিছু প্রভাবশালী লোকদের হাত রয়েছে বলেও জানা যায় এবং তাদের মাধ্যমে জমির মালিকদের বিভিন্ন রকম হুমকি ধামকি প্রদান করে সাইদুলের নামে জমি রেজিষ্ট্রি করে দিতেও বলে প্রভাবশালী বাক্তিরা। বর্তমানে আমি আমার জমি ফেরত পাবার জন্য কোর্টে একটি মামলা করেছি। কিন্তু সাইদুল কোর্টের আদেশ অমান্য করে উক্ত জায়গায় জোরপূর্বক বাড়ি নির্মান করছেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *