৮ টাকার তরমুজে ২ টাকা খাজনা



কুমারখালী প্রতিনিধি

দেশের সবচেয়ে আলোচিত রসালো ফল তরমুজ। তরমুজের দাম নিয়ে যেন কেতাদের শঙ্কায় কাটছে না। অতীতে পিচ হিসাবে তরমুজ বিক্রি হলেও এবার কাটল কেজিতে। এতে একদিকে যেমন বিপাকে ক্রেতারা, অন্যদিকে প্রতারিতও হয়েছেন ক্রেতা। কিন্তু জনতার প্রশ্ন কেন এমন বেহাল দশা তরমুজে! অনুসন্ধানে জানা গেছে, কৃষকদের কাছ থেকে পিচ হিসাবে তরমুজ কেনে পাইকাররা। পরে কেজিতে বিক্রি করে আরতদার ও খুচরা বিক্রেতারা। আরতদার প্রতিকেজিতে দুই টাকা করে খাজনা নেই। এখান থেকেই অনেকটা তরমুজের দাম বৃদ্ধি পায়। গতকাল রোববার দুপুরে কুমারখালী পৌরবাজারে এক তরমুজের আরতে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, প্রতি কেজি তরমুজ আকারভেদে আট থেকে বাইশ টাকায় বিক্রি করছে। এতে খাজনা নেওয়া হচ্ছে ক্রেতা ও বিক্রেতার নিকট থেকে এক টাকা করে মোট দুই টাকা। আর খুচরা বাজারে তরমুজ বিক্রি হচ্ছে বিশ থেকে চল্লিশ টাকা কেজি। আরতে কেজিতে দইটাকা খাজনা নেওয়া হচ্ছে। গতকাল রোববার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে (ইউএনও) মুঠোফোনে অভিযোগ জানান এক ক্রেতা। এরপর পৌরবাজারে অভিযান চালিয়ে অভিযোগের সত্যতা পান ইউএনও। আরতদারকে দুইহাজার টাকা জরিমান আদায় করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজীবুল ইসলাম খান। ওই আরতদারের নাম শহিদ বিশ্বাস। এবিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজীবুল ইসলাম খান বলেন, প্রতি কেজিতে দুইটাকা খাজনা নেওয়ার অভিযোগে অভিযান চালানো হয়। অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় এক আরতদারকে সতর্কতামূলক ভাবে দুই হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *